বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮  |   ৩১ °সে আপডেট : ২৯ নভেম্বর, ২০২১
ব্রেকিং নিউজ
  •   ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর সবুজ চত্বরে দেখা স্বপ্ন- সাতগ্রামবাসীর সেবার সুযোগ চান জোবায়ের
  •   অবশেষে অস্ট্রেলিয়ার হাতে ট্রফি
  •   আমাদের ভবিষ্যৎ নিয়ন্ত্রণ করবে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স: শিক্ষামন্ত্রী
  •   তৃতীয় শ্রেনীর শিক্ষকেরা প্রথম শ্রেনীর মানুষ তৈরি করে
  •   বিশ্বনেতাদের প্রতিশ্রুতির বন্যা

প্রকাশ : ১৭ নভেম্বর ২০২১, ১৯:২৮

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর সবুজ চত্বরে দেখা স্বপ্ন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর সবুজ চত্বরে দেখা স্বপ্ন- সাতগ্রামবাসীর সেবার সুযোগ চান জোবায়ের

নিজস্ব প্রতিবেদক
সাতগ্রামবাসীর সেবার সুযোগ চান জোবায়ের

পড়াশোনা শেষ করেছেন দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইন্সটিটিউট থেকে। বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকাকালীন দেশ ও দশের সেবার স্বপ্ন দেখতেন ছেলেটি। বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে থেকেই রাজনীতির হাতেখড়ি। তারুন্যের বরপুত্র সজীব ওয়াজেদ জয়ের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আই টি সোসাইটির সহ-সভাপতি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জসীম উদ্দীন হলের প্রতিটি সামাজিক সংগঠনের সাথে যুক্ত ছিলেন তিঁনি। বারবার সম্মাননা পেয়েছেন রক্তদাতা সংগঠন বাঁধন থেকে। অনার্স ও মাস্টার্স শেষ করেছেন ২০১৬ সালেই।

বন্ধুরা যেখানে সুনিশ্চিত পথের প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকারী কমর্কতা হবে ঠিক সেখানেই ব্যতিক্রম স্বপ্ন দেখলেন যে তিঁনি। শহরের রোমাঞ্চকর জীবন ছেড়ে সব নিয়ে সেই মাস্টার্স পরিক্ষা দিয়েই ফলাফলের আশা না করেই চলে এসেছেন গ্রামে। তাঁর সেই স্বপ্নের গ্রাম বাংলাদেশের নারায়নগঞ্জ জেলায় আড়াইহাজারের সাতগ্রাম। বলছিলাম সমাজের মানুষের স্বপ্ন দেখানো জোবায়ের হাসানের কথা। স্বপ্ন দেখেন সাত গ্রাম ইউনিয়নবাসীর সেবা করা এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ বুকে ধারণ করে, তাঁর সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে, আড়াইহাজার-এর উন্নয়নের রূপকার জনাব নজরুল ইসলাম বাবু এম.পি. মহোদয়ের উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রেখে আধুনিক সাতগ্রাম গড়ার দৃপ্ত শপথ নিয়ে নিজেকে প্রমাণের সুযোগ চান জোবায়ের।

তিনি আসন্ন সাতগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীক মনোনয়ন প্রত্যাশী একজন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্ভীকতা, দূরদর্শীতা, সিদ্ধান্তে অবিচল থাকার ক্ষমতা তাঁর চলার পথের পাথেয়। মেধা, প্রজ্ঞা ও সাহসের সংমিশ্রণে আনতে চান নতুনত্ব। স্বপ্ন দেখেন সাতগ্রাম ইউনিয়নকে রোল মডেল বানাবার।

জোবায়ের হাসান সরকারী বিজ্ঞান কলেজে অধ্যয়নকালে ছাত্রলীগের সান্নিধ্যে ছাত্র রাজনীতিতে হাতে খড়ি। পরবর্তীতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়ে হল, বিশ্ববিদ্যালয় ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সান্নিধ্যে থেকে সুযোগ হয়েছে একজন দক্ষ সংগঠক হয়ে ওঠার। নেতৃত্বের বহুমাত্রিকতা এবং ব্যাপ্তি জীবনে দিয়েছে পূর্ণতা। উন্নয়নের ছোঁয়ায় আধুনিক সাতগ্রাম গড়ার প্রত্যয়ে.. মানুষের সেবা এবং উন্নয়নের ব্রত নিয়ে মানুষের সান্নিধ্যে জীবন অতিবাহিত করাই জীবনের লক্ষ্য।

জোবায়ের হাসান ভাই-এর প্রতিশ্রুতিঃ জনগণের পাশে থেকে-

১। শিক্ষা ও জীবনযাত্রার মানোন্নয়ন

২। নিরাপত্তা ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করা

৩। মাদকমুক্ত সমাজ গড়া

৪। ভূমিদস্যুতা, দুর্নীতি ও বাল্যবিবাহ রোধ করা

৫। উন্নত চিকিৎসা ও স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করা এবং

৬। তরুণদের নতুন নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির মাধ্যমে সমাজের সার্বিক উন্নয়নে কার্যকর ভূমিকা রাখা।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত